মধুতে ভেজাল।Mixed with honey

মধুতে সাধারণত যেসব ভেজাল মেশানো হয় তার মধ্যে কয়েকটি হলো

চিনি: এটি সবচেয়ে সাধারণ ভেজাল। চিনি মেশালে মধুর পরিমাণ বেড়ে যায় এবং এর দামও কম হয়। কিন্তু এর ফলে মধুর পুষ্টিগুণ অনেক কমে যায়।

গ্লুকোজ: গ্লুকোজও মধুতে ভেজাল হিসেবে ব্যবহার করা হয়। এটি মধুকে পাতলা করে এবং এর স্বাদও পরিবর্তন করে।

শিরা: গুড় বা চিনির শিরা মধুতে মেশালে মধু ঘন দেখায়। কিন্তু এটি মধুর পুষ্টিগুণ নষ্ট করে।

পানি: পানি মেশালে মধুর পরিমাণ বেড়ে যায়। কিন্তু এটি মধুকে পাতলা করে এবং এর স্বাদও নষ্ট করে।

কৃত্রিম মিষ্টান্ন: কৃত্রিম মিষ্টান্ন মেশালে মধুর মিষ্টি স্বাদ বৃদ্ধি পায়। কিন্তু এটি শরীরের জন্য ক্ষতিকর।

অন্যান্য: এছাড়াও, মধুতে রং, সুগন্ধি, এবং অন্যান্য রাসায়নিকও মেশানো হতে পারে।

মধুতে ভেজাল থাকলে ক্ষতি:

    • মধুর পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়।

    • শরীরের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে।

    • মধুর স্বাদ ও গন্ধ নষ্ট হয়।

তাহলে উপায় কি ?

মধু কেনার সময় সতর্কতা:

    • খোলা মধু না কেনাই ভালো। বাজারে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের বোতলজাত মধু পাওয়া যায়। বোতলজাত মধু কেনার সময় ব্র্যান্ড এবং মধুর বিশুদ্ধতা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নিন।

    • মধুর দাম খুব কম হলে সন্দেহ করা উচিত। কারণ, খাঁটি মধুর দাম বেশি হয়।

    • মধু কেনার আগে মধু সম্পর্কে ভালো করে জেনে নিন।

ভেজাল রোধে আমাদের উদ্দোগ সমূহ

মধুর ল্যাব পরীক্ষা (পোলেন)

মাইক্রোস্কপিক স্লাইডের মাধ্যমে মধুর পোলেন দেখা হচ্ছে।

 

আমাদের মধু সংগ্রহ

আমাদের পণ্য অর্ডার করতে ক্লিক করুন

আমাদের অন্যান্য পণ্য সম্পর্কে জানতে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *